পেসমেকার

1757

হৃদপিণ্ডে পেসমেকার প্রতিস্থাপনের কথা আমরা প্রায়ই শুনে থাকি। কিন্তু কখনো কি ভেবে দেখেছি এই পেসমেকারটা সম্পর্কে?

পেসমেকার হচ্ছে এমন এক ধরণের ডিভাইস যেটি অনিয়ন্ত্রিত হৃদস্পন্দন নিয়ন্ত্রণ করে। সাধারণত হৃদস্পন্দন কমে গেলে (যাকে Bradycardia বলে) সেটাকে বাড়ানোর জন্য পেসমেকার লাগানো হয়। এই পেসমেকারে আসলে একটি লিথিয়াম ব্যাটারি লাগানো থাকে। আর এটি হৃদপিণ্ডের সাথে শিরার মধ্য দিয়ে তার দ্বারা সংযুক্ত থাকে।

মানুষের স্বাভাবিক হৃদস্পন্দন মিনিটে ৬০-৯০। যদি স্বাভাবিকের চেয়ে স্পন্দন কম হয়, তাহলে  হৃদপিণ্ডে স্বাভাবিক রক্তসঞ্চালন প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়, অর্থাৎ তখন শরীরে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত প্রবাহের জন্য হৃদপিণ্ড কাজ করতে সক্ষম থাকেনা।

কিন্তু এই ডিভাইসটি বুঝে কিভাবে যে হৃদস্পন্দন বাড়ছে নাকি কমেছে? আসলে এর ভিতরে একটা সফটওয়্যার ইনস্টল করা থাকে যার মাঝে স্বাভাবিক হার্টবিট রেট দেয়া থাকে। এর কম-বেশি হলেই সে নিজে থেকেই কাজ করা শুরু করে। এটি সাধারণত চুপচাপ বসে থাকে, যখনই এর প্রয়োজন হয়, ঠিক তখনি এটা কাজ করে।

১৯৫৮ সালে হৃদস্পন্দনের শব্দ শোনার জন্য কম্পনযন্ত্র বানাতে গিয়ে পেসমেকার আবিষ্কার করে বসেন যুক্তরাষ্ট্রের উইলসন গ্রেটব্যাচ। তবে ১৯৬০ সালে প্রথম মানুষের শরীরে পেসমেকার স্থাপন করা হয়। ওই রোগী বেঁচেছিলেন ১৮ মাস।

লিখাটি নিয়ে আপনার অভিমত কি?