স্মৃতি বৃদ্ধি ও ডায়াবেটিস চিকিৎসায় কফি !

স্মৃতি বৃদ্ধি ও ডায়াবেটিস চিকিৎসায় কফি !

কিছু মানুষ আছেন, যাঁরা একটু আগে কী করেছেন সে কথা বেমালুম ভুলে যান।  যিনি এ সমস্যায় ভোগেন তিনিই টের পান বিষয়টা কত বিব্রতকর। এ রকম কাউকে টিপ্পনী কেটে অনেকে বলেন, 'ভুলে যাওয়া তার স্বভাব।' কিন্তু বিজ্ঞান বলে, ভুলে যাওয়া বা মনে না থাকার সমস্যা আসলে মস্তিষ্কের এক ধরনের রোগ। এর ফলে স্মৃতিবিভ্রম তৈরি হয়। চিকিৎসাই এর প্রথম সমাধান। তবে চিকিৎসার পাশাপাশি এ ধরনের রোগীরা টোটকা হিসেবে প্রতিদিন কফি পান করে দেখতে পারেন। অবশ্যই উপকার পাবেন। এমনকি বয়সজনিত কারণে যেসব মুরব্বি মনে না রাখার সমস্যায় ভুগছেন, উপকার পাবেন তাঁরাও। বিষয়টা গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে। তবে কফিটা হতে হবে ক্যাফেইনমুক্ত। এমনকি টাইপ-২ ডায়াবেটিসের চিকিৎসায়ও এ ধরনের কফি পানে উপকার পাওয়া যায়। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক শহরের মাউন্ট সিনাই স্কুলে ক্যাফেইনমুক্ত কফি পানের বিভিন্ন দিক নিয়ে সম্প্রতি একটি গবেষণা সম্পন্ন হয়। এ গবেষণার জন্য দুটো ইঁদুরকে বেছে নেওয়া হয়। একটি ইঁদুর ছিল স্বাভাবিক ও অন্যটা টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। ইঁদুর দুটোকে পথ্য হিসেবে ক্যাফেইনমুক্ত কফি পান করানো হয়। ছয় মাস পর দেখা যায়, ক্যাফেইনমুক্ত কফি পান করে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ইঁদুরটির মস্তিষ্কে চিনির মাত্রার ইতিবাচক পরিবর্তন হয়েছে। অন্য ইঁদুরটিরও স্মৃতিশক্তি বেড়েছে।
গবেষক দলটির প্রধান, ড. গুইলিও মারিয়া জানান, এই ফলাফল মানুষের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।
মূলত স্মৃতিশক্তির সমস্যায় মস্তিষ্কে গ্লুকোজ বা চিনির মাত্রা কমে যায়। টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে। নিয়মিত ক্যাফেইনমুক্ত কফি পানে মস্তিষ্কে চিনির মাত্রা বেড়ে যায়।

Facebook Comments

1 Comment

  1. Pingback: স্মৃতি বৃদ্ধি ও ডায়াবেটিস চিকিৎসায় কফি ! - আমার প্রিয় দেশ

Leave a Reply